হাটুর ব্যাথা প্রতিরোধে করনীয়

admin

দৈনন্দিন জীবনে কাজকর্ম করতে গিয়ে যে প্রধান সমস্যা দেখা যায় তা হল, হাঁটুতে ব্যথা। এটি একটি বার্ধক্যজনিত রোগ। এছাড়াও মহিলারা সাধারনত ৪০ বছরের পর ঋতুচক্র বন্ধ হয়ে যাবার পর হরমোনের তারতম্যের কারনে অস্থি কনিকা ক্ষয় প্রাপ্ত হয়ে এই রোগ দেখা দেয়। তাছাড়াও খেলোয়াড়দের খেলার সময় অসম অবস্থানের কারনে, আঘাত পেলে অথবা মচকে গেলে হাঁটুতে ব্যাথা হবে পারে। কারনঃ
বার্ধক্যজনিত হাড় ক্ষয়ের কারনে অথবা
আর্থ্রাইটিস বা বাতের ব্যথার জন্য হাঁটুতে ব্যাথা হয়। এছাড়াও
আঘাতজনিত কারনে যেমন, মিনিকাস ইজুরি, নি লিগামেন্ট ইনজুরি এবং মাংসপেশী টান বা ছিড়ে যাওয়া সম্পর্কিত ইনজুরি আর আঘাত পেয়ে হাড় ভেঙ্গে বা ফেটে যাওয়া থেকেও হাঁটুতে ব্যাথা হয়। সাধারণভাবে ওজন বেশি হলে এবং মাংসপেশী শক্ত হয়ে গেলে হাঁটুতে ব্যাথা হতে পারে। অনেক সময় পা,গোড়ালী, হিপ এমনকি কোমড়ের ব্যথা থেকেও হাঁটুতে ব্যাথা হতে পারে। আবার আদ্র ও ঠান্ডা পরিবেশের কারনেও হাঁটুতে ব্যাথা
হয়। অন্যদিকে জয়েন্ট বা সন্ধির ডিসলোকেশন বা সরে যাওয়া,
অস্টিওপোরোসিস অর্থাত অস্থি পাতলা বা ছিদ্র হয়ে যাওয়া এবং ভেরিক্রস ভেইন বা শিরায় রক্ত জমাট বাধা থেকেও হাঁটুতে ব্যাথা হয়।
লক্ষনঃ

হাঁটুতে ব্যাথা হওয়া এবং হাঁটু ও পায়ের আঙ্গুলের জয়েন্টে ফুলে যাওয়া।

হাঁটুতে লালচে ভাব হওয়া এবং হাত দিলে গরম অনুভব করা।

চলাফেরা করতে অথবা হাঁটু ভাঁজ করতে সমস্যা হওয়া।

সন্ধি বা জয়েন্ট শক্ত হয়ে যাওয়া ও কার্যক্ষমতা কমে যাওয়া।

নড়াচড়ার সময় হাঁটুতে শব্দ হওয়া।

হাটু ডিফরমিটি বা বিকৃতি হয়ে
যাওয়া।

দৈনন্দিন কাজকর্ম করতে অসুবিধা
হওয়া।

সম্পূর্ণ সোজা হয়ে হাঁটতে না পারা।

পরামর্শঃ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিকভাবে রোগ নির্ণয় চিকিৎসা, ব্যায়াম, খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনার মাধ্যমে অনেক জটিল ব্যাধি নিরাময় ও নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব। হাঁটু ব্যাথায় ফিজিওথেরাপি খুবই কার্যকর চিকিৎসা। তাই একজন
অভিজ্ঞ ফিজিওথেরাপিস্ট দ্বারা চিকিৎসা গ্রহন করে হাঁটু ব্যাথা
থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

লেখক ও গবেষক:
মোঃ জহিরুল ইসলাম সুমন।
ফিজিওথেরাপিষ্ট
শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। ঢাকা।

Next Post

সাংগঠনিক সম্পাদক সাদমান সাকিবের নেতৃত্বে অসহায়দের মাঝে চাল ডাল বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বিশ্বজুড়ে মহামারী আকার ধারণ করা নোবেল করোনা ভাইরাস সতর্কতায় সাধারণ লোকজনকে সচেতন করে তোলার লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর উত্তরের উত্তরা পশ্চিম থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদমান সাকিবের নেতৃত্বে উত্তরার বিভিন্ন স্থানে অসহায় ৫০ টি পরিবারের মাঝে চাল ডাল বিতরণ করা হয়েছে। (১৭ এপ্রিল) এসব বিতরণ করা হয়। এ […]