করোনাভাইরাস শনাক্তে উহানে ‘সহজ, সস্তা, দ্রুতগতির’ পরীক্ষা

admin

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষা করা যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে কঠিন হলেও চীনের যে শহরে প্রথম ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব হয়েছিল, সেই উহানে তুলনামূলক সহজে, সস্তায় এবং দ্রুতগতিতে কোভিড-১৯ এর পরীক্ষা করা যাচ্ছে।

হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান ঘুরে আসা সাংবাদিকরা জানিয়েছেন এমন কথাই। ‘নিউক্লিয়িক এসিড টেস্ট’ নামের এ পরীক্ষায় খুব কম সময়ে নমুনা সংগ্রহ করা যায়; খরচ পড়ে ৪০ ডলারেরও কম। ফল মেলে এক থেকে দেড়দিনের ভেতর।

শহরটির বিভিন্ন কোম্পানি এখন তাদের কর্মীদের কাজে ফেরার আগে এ পরীক্ষার ফল দেখাতে বলছে; সরকার সবার জন্য এটি বাধ্যতামূলক না করলেও উহান কর্তৃপক্ষ করোনাভাইরাস শনাক্তে সহজ ও দ্রুতগতির এ পরীক্ষা উৎসাহিত করছে।

ডিসেম্বরের শেষদিকে এক কোটি ১০ লাখ বাসিন্দার উহান থেকেই করোনাভাইরাস প্রথমে চীনের অন্যান্য শহরে এবং পরে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রাণঘাতী এ ভাইরাস এক লাখ ২০ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। শনাক্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ লাখ পেরিয়ে ছুটছে ২০ লাখের দিকে।

চীনজুড়ে এখন পর্যন্ত যত মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, তার সিংহভাগও উহানের। পরিস্থিতি মোকাবেলায় জানুয়ারি মাসেই দেশটির সরকার বেইজিং থেকে এক হাজার ১৫২ কিলোমিটার দূরের শহরটিকে ‘অবরুদ্ধ’ ঘোষণা করেছিল।

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসায় ৭৬ দিন পর গত সপ্তাহে ওই লকডাউন তুলে নেওয়া হলেও এখনও কিছু বিধিনিষেধ বহাল আছে। রাজধানী বেইজিংয়ের মতো দেশটির বেশিরভাগ শহরই এখন ভ্রমণে আসা ব্যক্তিদের করোনাভাইরাস শনাক্তে করা পরীক্ষার ফল জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

সহকর্মীদের নিয়ে উহান গিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদক ব্লেন্ডা গোহকেও ‘নিউক্লিয়ার এসিড টেস্টের’ মুখোমুখি হতে হয়।“সরকারি এক কর্মকর্তা পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে যান। ঝাঁপি ফেলা হোটেলের প্রবেশপথের বাইরে একটি টেবিলে এক নারী স্বাস্থ্যকর্মী বসা, তার পরনে সুরক্ষা পোশাক ও গগলস। তিনি আমার ব্যক্তিগত তথ্য নেন, বসতে বলেন। এরপর গলায় একটি সোয়াব (নমুনা সংগ্রহকারী উপকরণ) ঢুকিয়ে দেন, গলা প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। এটুকুই,” বলেন ব্লেন্ডা।

পরীক্ষা শেষ হতে তিন সেকেন্ডেরও কম সময় লেগেছে বলে জানান রয়টার্সের এ প্রতিবেদক। দেড়দিনের ভেতর পরীক্ষার ফল পাওয়া যাবে বলেও ওই নারী কর্মী ব্লেন্ডাকে জানিয়ে দেন। কর্মকর্তারা জানান, উহানের হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসাধীন কোভিড-১৯ রোগীদের ছেড়ে দেওয়ার আগে দুই দফা নিউক্লিয়িক এসিড টেস্ট হয়। দুটোতে ফল ‘নেগেটিভ’ এলেই তারা ছাড়া পান।

চীনের অনেক চিকিৎসক রোগীদের ছেড়ে দেওয়ার আগে এ পরীক্ষা ন্যূনতম তিনবার করার পরামর্শ দিচ্ছেন। কোথাও কোথাও এ পরীক্ষা আরও সহজে করা হচ্ছে। উহানের এক হাসপাতালে যে কেউ টেস্ট টিউবের মধ্যে থুতু ফেলেও নমুনা দিয়ে আসতে পারেন। করোনাভাইরাস শনাক্তে এ পরীক্ষার খরচ মাত্র ২৬০ ইউয়ান (৩৭ ডলার); ফল জানা যাবে মোবাইল অ্যাপে।

“কর্মকর্তারা পরে আমার পরীক্ষার ফল মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দেন। ফল নেগেটিভ এসেছে,” বলেন ব্লেন্ডা। ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে এভাবে ৯ লাখ ৩০ হাজার ৩১৫টি পরীক্ষা হয়েছে বলে চীন সরকারের দেওয়া তথ্যে জানানো হয়েছে।

“পরীক্ষা করা ভাল। যদি আপনার প্রতিষ্ঠানে ৫০০ কর্মী থাকে, এবং আপনি ফের কাজ শুরু করতে চান। তাহলে আপনাকে সবার পরীক্ষা করাতে হবে,” বলেন ঝংহান হাসপাতালের ভাইস প্রেসিডেন্ট ঝাও ইয়ান।

Next Post

করোনাভাইরাস: কান চলচ্চিত্র উৎসবের ‘স্বাভাবিক রূপ’ সম্ভব নয়

মহামারীর কারণে এই বছর কান চলচ্চিত্র উৎসব ‘আসল রূপ’য়ে আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না। গত মাসে আয়োজকরা নির্ধারিত সময় বাতিল করে ঘোষণা দেয় যে, এই বছর জুন বা জুলাইয়ের দিকে কান চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করা হবে। তবে ফ্রান্সের ‘লকডাউন’য়ের সময় বৃদ্ধি করাতে আয়োজকরা জানায় এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার আর কোনো […]